ম্যাচমেকিংঃ কেবল প্রেম করলেই বিয়ে হয় না

শিক্ষার্থীদের প্রেম করা কি নিষেধ।একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে মাস্টার্সের ছাত্র হয়ে যদি কোন মেয়েকে বিয়ে করার উদ্দেশ্যে সম্পর্ক রাখতে চাই এমনটি করা যাবে কি?

যেহেতু আর কয়েকবছর পর বিয়ের পাত্রী খুঁজতে গিয়ে উপযুক্ত কাউকে পেতে অনেক কষ্ট হতে পারে।

আপনি মাত্র মাস্টার্স করেছেন আপনার বয়স কত হবে বাইশ তেইশ চব্বিশ। আপনি বিয়ে করার জন্য আপনি উপযুক্ত হবে না আরো 45 বছরের পর অর্থাৎ ২৮  থেকে ৩০ বছর।

বিয়ে করার জন্য পাত্রী পাবেন না এরকম আশঙ্কায় ছাত্রাবস্থায়ই থেকে প্রেম করা ভাবনা যে আপনি ভাবছেন তা তো হাস্যকর মনে হচ্ছে।

আর আসল কথা হলো নিজেকে একজন সফল মানুষ হিসেবে গড়ে তুলুন আপনি যখন কখনোই পাত্রীর অভাব হবে না।

পাত্রী খুঁজতে গিয়ে অনেক কষ্ট হবে না।

পাত্রীর কোন অভাব আসলেও আছে আত্ম নেওয়ার মতো লোকের অভাব হবে না।

আর আসল কথা হল এখন অনেক মেয়ের বিয়ে হচ্ছে না, কারন পুরুষরা দায়িত্ব নিতে চায় না।বিয়ে করে একটু ঘুরলাম একটু খাওয়া-দাওয়া এই করলাম সেই করলাম বাসায় গিয়ে নিজের মত থাকলাম এইগুলা হচ্ছে এখনকার পুরুষরা বেশিরভাগ পড়তে পছন্দ করেন।

কাজেই ছাত্রাবস্থায় ট্রেনের চিন্তা ত্যাগ করে যখন বিয়ের সময় আসবে তখন দায়িত্ব নেয়ার মানসিকতা নিয়ে মেয়ে খুঁজে দেখুন যোগ্যপ্রার্থী আপনি পেয়ে যাবেন।

এমন প্রশ্ন উদ্ভব হয় প্রেম না করলে ভালো মেয়ে বিয়ে করা সম্ভব নয় বিয়ের আগে কারো সাথে সম্পর্ক রাখা উচিত কিনা তাহলে কি করা যেতে পারে?

আপনি তো এখনো বেলতলায় যান নি কিন্তু এরকম ভাবছেন। মেয়ে বা ছেলে ভালো না খারাপ এটা বোঝা যায় বিয়ের পরে আগে না। বিয়ের আগে তো সব লিপস্টিক হাসি।

সব মেয়েই বিয়ের আগে যখন প্রেমে পড়ে নিজেকে নায়িকা মনে করে আর সব ছেলে নিজেকে সিনেমার নায়ক মনে করে।

যাকে যার পছন্দ হয় মনে করে যে নায়ক বা নায়িকা চলে এসেছে।

বিয়ের আগে সবাইকে খুব ভালো মনে হয়।

বিয়ের পর বোঝা যায় যে সে কেমন তার আসল রূপ খুঁজে পাওয়া যায়।

আর যে মনে করে প্রেম না করলে ভালো মেয়ে বিয়ে করা সম্ভব নয় তার মতো আহাম্মক পৃথিবীতে দ্বিতীয় টা নেই।

কারণ প্রেমের সময়ে কে ভালো কে মন্দ এটা বোঝার কোনো সুযোগই থাকে না।

প্রেমে পড়লে মানুষ অন্ধ হয়ে যায়।

যদি প্রেম করলেই দিয়ে সুখের হতো তাহলে ইউরোপ-আমেরিকায় শুধু প্রেম না ডেটিং করার পরে বিয়ে করে তারপর বিয়ে টিকে না।

এমনকি আমাদের দেশে প্রেম করে যত বিয়ে হয়েছে তার নব্বই শতাংশ ক্ষেত্রে অশান্তি।

কোন মেয়েকে আপনি বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছেন কিন্তু সে মেয়ে প্রত্যাখ্যান করেছে তাকে কিভাবে বিয়েতে রাজি করানো যায়?

আমরা এখানে ভুল করি।কাউকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছেন সাথে সাথে আপনাকে মেনে নিতে হবে আপনার আমার যেরকম প্রস্তাব দেয়ার অধিকার আছে তেমনি তারও প্রত্যাখ্যান করার স্বাধীনতা আছে।

তিনি যেহেতু আপনাকে প্রত্যাখ্যান করেছেন তেমনি আপনি আনন্দচিত্তে তার শুভ কামনা করুন যে তোমার আরো ভালো বিয়ে হোক।

Share this Post