মেয়ে জন্মানোর পর তাকে আপন করে নেওয়া

আমার মেয়ে সন্তানের বয়স ৪ মাস।আর আমার স্বামীর ইচ্ছে ছিল ছেলের গায়ে মেয়ের প্রতি তার কোন ভালোবাসার অনুভূতি নেই। আমি অনেক বলেছি যে ও তো তোমারই সন্তান ওকে অনুভব করো ।কিন্তু এখন বুঝি এভাবে বলে অনুভূতি আনা যায় না ।সে কিভাবে মেয়েকে আপন করে নেবে?

আসলে মূল সমস্যাটা তো আপনার মধ্যে। আপনার স্বামীকে আপনি বারবার বলছেন এটা তোমার সন্তান অনুভব করো ।কিন্তু এখন আপনি বুঝতে পারছেন এভাবে বলে অনুভূতি সৃষ্টি করা যায় না ।মূল সমস্যা কিন্তু আপনি সৃষ্টি করছেন। কারণ অনেক কিছু আছে যা বুঝতে দিলে হয় না ।অনেক কথা আছে যা সরিয়ে দিতে হয়না।

আপনার কথা থেকে বুঝা যাচ্ছে যে আপনার মেয়েও হয়তো বুঝেছে তার বাবার চেয়ে ছেলে ছিল কিন্তু সেই আশা পূরণ না হয় তার বাবা তাকে পছন্দ করে না। তাকে আপন করে নিতে পারেনি কারন আপনার এধরনের কথা চিন্তা সে শুধু মনের মধ্যে সীমিত ঠিক আছে সেটা মনে হয় না

আর আমার মেয়ে সন্তান বলে আপনি কি বোঝাচ্ছেন? সে কি আপনার স্বামী সন্তান নয়? আপনার সন্তানকে অনুভব করছে না এসব বলে আপনি নিজেই কিন্তু দূরত্ব সৃষ্টি করছেন। কেউ ছেলে সন্তান আবার কেউ মেয়ে সন্তান চাইতে পারে। এটা হচ্ছে বাস্তবতা। আপনার প্রশ্ন হচ্ছে আপনার স্বামী আপনাকে আর বাচ্চাকে কিভাবে আপন করে নেবে?
 কিন্তু আপন করে যদি নাই নি তো তাহলে সাড়ে ছয় বছর লালন পালন করছে কিভাবে? আপনার এক সাথেই বা আছেন কি করে।

একটা কথা মনে রাখবেন সবার কাছ থেকে আবেগ-অনুভূতির একই রকম প্রত্যাশা করা ঠিক না। আপনি যত স্বামীকে বলবেন সন্তানকে আপন করে নাও। তথ্য থাকে আপনি ছোট করবেন সন্তানকে ছেড়ে দিন সন্তানের মতো স্বামীকে ছেড়ে দিন তার মত।

আপনার যেটুকু দায়িত্ব-কর্তব্য সেটা আপনি আন্তরিকতার সাথে করে যান। বাবা এক সময় নিজেই বুঝবেন, তিনি সন্তানকে কতটা ভালবাসেন। সময় এর উপর ছেড়ে দিন। আর দোয়া করুন এটা নিয়ে কখনো কথা বলতে যাবেন না ।কারণ কথা বলে যে অনুভূতি আনা যায় না আপনি নিজেও বুঝতে পেরেছেন সবসময় যা চান সেটার প্রতি মনোযোগ দেবেন।

আপনার স্বামীকে কমান্ড সেন্টারে নিয়ে আসুন। সন্তানকে তার কোলে দিয়ে দিন তাকে অনুভব করতে দিন কিন্তু এ ধরনের যোগাযোগ বিটা লেভেল সাধারণত জাগ্রত অবস্থায় করবেন না। সময় সময় আলফা  লেভেলে করবেন তাতে মেসেজটা হৃদয় প্রবেশ করবে। আপনি সমস্যাকে সমাধান এ রূপান্তরিত করতে পারবেন।